1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন

একাত্তরে শরীরে মাইন বেঁধে জাহাজ উড়িয়ে দেওয়া বীরের প্রয়াণ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ৮ জুলাই, ২০২২

চট্টগ্রাম ব্যুরো: একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে মাত্র ১৬ বছর বয়সে বুকে-পেটে মাইন বেঁধে কর্ণফুলী নদীতে দুঃসাহসিক অভিযান চালিয়ে বিদেশি জাহাজ ধ্বংস করে দেওয়া নৌ কমান্ডো বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু মুসা চৌধুরী মারা গেছেন। মুক্তিযুদ্ধে নৌপথের সেই অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছিল ‘অপারেশন অ্যাভলুজ’। আর সেই অভিযানের নেত্বত্ব দিয়েছিলেন কিশোর আবু মুসা চৌধুরী।


বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) রাত আড়াইটার দিকে চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার হাইদচকিয়া গ্রামে নিজ বাড়িতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

আবু মুসা চৌধুরীর ভাগ্নে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী সারাবাংলাকে জানিয়েছেন, মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তান রেখে গেছেন। শুক্রবার বিকেলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষ শ্রদ্ধা ও নামাজে জানাজার পর তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।


একাত্তরে দশম শ্রেণির ছাত্র থাকাবস্থায় নৌ কমান্ডো আবু মুসা চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধে অপারেশন জ্যাকপট ও অপারেশন আউটার অ্যাংকরসহ ছয়টি সফল নৌ অভিযানে অংশ নেন। অ্যাভলুজ তার তৃতীয় অপারেশন। ১৯৭১ সালের ২ অক্টোবর আবু মুসার নেতৃত্বে চট্টগ্রাম বন্দরে গ্রিসের পতাকাবাহী তেলভর্তি জাহাজ এমটি অ্যাভলুজ ধ্বংসের পর বিশ্বব্যাপী মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাঁথা ছড়িয়ে পড়ে।

তার প্রথম অপারেশন আগস্টের অপারেশন জ্যাকপট, দ্বিতীয় অপারেশন আউটার অ্যাংকর। অ্যাভলুজের পর বুড়িগঙ্গা-ধলেশ্বরী মোহনায় এমভি তুরাগ ধ্বংস, নারায়ণগঞ্জে বিশ্ব গোডাউনের সামনে জাতিসংঘের রসদবাহী জাহাজ মিনি লেডি ও মিনি লায়ন ধ্বংস এবং কাঁচপুর ফেরি ও পন্টুন উড়িয়ে দেওয়ার অভিযানে ছিলেন এই অন্যতম বীর। এসব নৌ অপারেশন বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাসে মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে।


অ্যাভলুজ ধ্বংসের সময় তার মাথায় সৃষ্ট ক্ষত যুদ্ধের দুই দশক পর কঠিন ব্যাধিতে রূপ নেয়। আমৃত্যু যুদ্ধের সেই ক্ষত তিনি বয়ে বেড়িয়েছেন। তবে মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদান রেখেও তিনি কোনো রাষ্ট্রীয় খেতাব পাননি।

বীর মুক্তিযোদ্ধা নৌ কমান্ডো আবু মুসা চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবুল হাসেম, চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডার মোজাফফর আহাম্মদ, ডেপুটি কমান্ডার শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দ, সহকারী কমান্ডার সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সরওয়ার আলম চৌধুরী মনি, মহানগর কমিটির আহ্বায়ক সাহেদ মুরাদ সাকু ও সদস্য সচিব কাজী মুহাম্মদ রাজিশ ইমরান, জেলা কমিটির আহ্বায়ক মশিউজ্জামান সিদ্দিকী পাভেল ও সদস্য সচিব কামরুল হুদা পাভেল।


জাসদের প্রতিষ্ঠাকালীন সংগঠক ছিলেন আবু মুসা চৌধুরী। তার মৃত্যুতে গভীর শোক এবং সমবেদনা জানিয়েছেন জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরিন আক্তার।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি