1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : nowshad Uddin : nowshad Uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:১৩ পূর্বাহ্ন

করোনা নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারী, ২০২১

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে এবং সাত দিনের মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত বাতিল করতে সরকারের প্রতি আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ার। একইসঙ্গে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে নোটিশের জবাব না দিলে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট দায়ের করা হবে বলে জনিয়েছেন তিনি।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের সচিব, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক ও কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক বরাবর রেজিস্ট্রি ডাকযোগে এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ার নিজেই আইনি নোটিশ পাঠানোর বিষয়টি জানিয়েছেন।

নোটিশে বলা হয়েছে, করোনা মহামারি নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা এবং আইনি নোটিশ পাওয়ার সাত দিনের মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত বাতিল করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ও প্রচার কবতে হবে। আগামী ৩০ দিনের মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে যৌথ কমিটি গঠন করে অনলাইনে শতভাগ ক্লাস নেওয়া তথা শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করতে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, কারিগরি ও মাদরাসা পর্যায়ে ডিজিটাল শিক্ষা কনটেন্ট তৈরির পদক্ষেপ নিতেও বলা হয়েছে নোটিশে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই সরকারের মন্ত্রিসভার বৈঠক, ভার্চুয়াল কোর্টের মাধ্যমে বিচারিক কার্যক্রম, টেলিমেডিসিন সেবাসহ বিভিন্ন অনলাইন সেবা কার্যক্রম সরকার সাফল্যের সঙ্গে পরিচালনা করছে। বিটিআরসির’র তথ্য বলছে, করোনা মহামারির সময়ে বাংলাদেশে ইন্টারনেটের ব্যবহার বেড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ, ই-কমার্সে কেনাকাটা বেড়েছে ৫০ শতাংশ এবং মোবাইল ব্যাংকিংয়ে অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে ৫০ লাখ। আর এসব কিছুর মূলে ছিল ইন্টারনেট ও টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক।

এসব তথ্য উল্লেখ করে নোটিশে বলা হয়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিলে বেশিরভাগ শিক্ষক চল্লিশোর্ধ হওয়ায় তাদের মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি থাকবে। আবার নিম্নমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব অনুসরণ বা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়গুলো সঠিকভাবে পালন নিয়েও শঙ্কা রয়েছে। কিন্তু বর্তমান সরকারের নানা পদক্ষেপের ফলে বাংলাদেশের সব জেলায় মোবাইল নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেট সেবা থাকায় বর্তমান ডিজিটাল বাংলাদেশের যেকোনো স্থানে থেকেই সহজে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা ও অংশগ্রহণ করা সম্ভব।

এ কারণে করোনা মহামারির মধ্যে অনলাইনে পাঠদানের সুযোগ থাকায় এই মহামারি নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু না করতে বলা হয়েছে নোটিশে।

নোটিশদাতা আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ার বলেন, ‘গতকাল (বুধবার, ২৭ জানুয়ারি) সরকারের ছয়টি দফতরে রেজিস্ট্রি ডাকযোগে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছি। নোটিশপ্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাহার ও ৩০ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যবস্থা না করলে হাইকোর্টে রিট দায়ের করব।’

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি