1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  3. sayefrahman7@gmail.com : Sayef Rahman : Sayef Rahman
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:০২ অপরাহ্ন

চ্যাম্পিয়ন অভিশাপ কাটানো আর মেসি ম্যাজিকের ৭ম দিন

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

কাতার বিশ্বকাপের ষষ্ঠ দিনটি একটু বেশিই বিশেষ ছিল। মেক্সিকোর বিপক্ষে আর্জেন্টিনার বাঁচামরার লড়াই। আর ফ্রান্স ও ডেনমার্কের হাই ভোল্টেজ ম্যাচ। মেক্সিকোর বিপক্ষে পা হড়লাকেই বিদায় বিশ্বকাপ থেকে। অন্যদিকে ফ্রান্সের মাথায় তখনও চ্যাম্পিয়ন অভিশাপের ভয়। তবে দিন শেষে কেটে গেছে সবই। প্রথমে কিলিয়ান এমবাপের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ডেনমার্ককে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে নক আউট পর্ব নিশ্চিত করেছে ফ্রান্স। আর মধ্যরাতে লিওনেল মেসি ম্যাজিকে মেক্সিকোকে হারিয়ে নক আউটের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রেখেছে আর্জেন্টিনা।


দিনের অন্য দুই ম্যাচেও হয়েছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। ১২ বছর পর বিশ্বকাপে জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তিউনিশিয়াকে ১-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে সকারুরা। অন্যদিকে রবার্ট লেভান্ডোফস্কির গোলে সৌদি আরবকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়েছে পোল্যান্ড।


শেষবার ২০১০ দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে জয় পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপর ২০১৪ ব্রাজিল আর ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে খেললেও জয়ের দেখা পায়নি সকারুরা। এবার ১০ বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটল অস্ট্রেলিয়ার। কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে তিউনিশিয়াকে ১-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে শেষ ষোলতে যাওয়ার সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখল অস্ট্রেলিয়া।


ম্যাচের শুরু থেকেই দুই দল দুর্দান্ত আক্রমণ করতে থাকে। অস্ট্রেলিয়া আক্রমণে আগায় তো বল কেড়ে নিয়ে প্রতি আক্রমণে তিউনিশিয়া। তবে ম্যাচে সবচেয়ে বড় সুযোগ পায় তিউনিশিয়া ১৯তম মিনিটে ডান দিক থেকে জেবালি বল বাড়ালেও তা জালে জড়াতে ব্যর্থ। তবে দুর্দান্ত আক্রমণ করতে থাকা তিউনিশিয়াকে স্তব্ধ করে দেয় অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের ২৩তম মিনিটে এসে। প্রতি আক্রমণে বাদ দিক থেকে ক্রেরিগ গুডউইন দারুণ এক ক্রস দেন ডি বক্সে তার ক্রস লাফিয়ে উঠে মাথা ছোয়ান মিচেল ডিউক। আর তাতেই লক্ষ্যভেদ, অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে যায় ১-০ গোলের ব্যবধানে।


আক্রমণে এগিয়ে থেকেও পোল্যান্ডের কাছে হারল সৌদি
পোল্যান্ডের বিপক্ষে পেনাল্টি মিসের খেসারত দিতে হলো সৌদি আরবকে। গোটা ম্যাচে পোলিশদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েও শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের ব্যবধানে হারে সৌদি আরব। পোল্যান্ডের হয়ে পিটর জেলেনস্কি আর রবার্ট লেভান্ডোফস্কি একটি করে গোল করেন। সৌদির হয়ে সালেম আল দাওসারি পেনাল্টি নেন আর সেই পেনল্টি রুখে পোল্যান্ডের জয়ের নায়ক ওজচেখ সেজনি।


গোটা ম্যাচে বল দখলের লড়াইয়ে পোল্যান্ডকে পাত্তায় দেয়নি সৌদি আরব। গোলের সুযোগ তৈরি বা লক্ষ্যে শট নেওয়ার ক্ষেত্রে সব দিকদিয়েই এগিয়ে ছিল সৌদি আরব। তবে এক পেনাল্টি মিসের খেসারত হেরেই দিতে হয়েছে সৌদিদের। গোটা ম্যাচের ৬৪ শতাংশ বল দখলে রেখে ১৬টি শট নেয় সৌদি। যার মধ্যে ৫টিই ছিল লক্ষ্যে। অন্যদিকে মাত্র ৩৬ শতাংশ বল দখলে রেখে ৯টি শট নেয় পোল্যান্ড যার মধ্যে তিনটি রাখতে পারে লক্ষ্যে।

চ্যাম্পিয়ন অভিশাপ কাটানো আর মেসি ম্যাজিকের ৭ম দিন

এমবাপে নৈপূণ্যে ডেনমার্ককে হারিয়ে সবার আগে শেষ ১৬’তে ফ্রান্স
শেষ তিন বিশ্বকাপের সবকটিতেই গত আসরের চ্যাম্পিয়ন দল প্রথম পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল। তাই তো ‘চ্যাম্পিয়ন অভিশাপ’ মাথায় নিয়ে এবারের বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। তবে এবার সেই কার্সকেই বিদায় জানিয়ে দিল কিলিয়ান এমবাপেরা। ডেনমার্কের বিপক্ষে জোড়া গোল করে ফ্রান্সকে এনে দিয়েছেন জয়। আর তাতেই ফ্রান্সের নিশ্চিত কাতার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্বে খেলা। এবারের বিশ্বকাপের প্রথম দল হিসেবে শেষ ষোলো নিশ্চিত করল ফ্রান্স।

ফ্রান্স ও ডেনমার্কের মধ্যকার ম্যাচের প্রথমার্ধ গোলশূন্য ড্র থাকে। তবে ম্যাচের চিত্র বদলে যায় দ্বিতীয়ার্ধে। ৬১তম মিনিটে কিলিয়ান এমবাপে প্রথম গোল করে এগিয়ে নেন ফ্রান্সকে। তবে এর সাত মিনিট পর আন্দ্রেস ক্রিস্টিয়ানসেন গোল করে সমতায় ফেরান ডেনমার্ক। এরপর দ্বিতীয় গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে ফ্রান্স। আর নির্ধারিত ৯০ মিনিটের মাত্র ৪ মিনিট বাকি থাকতে দ্বিতীয় গোল করে ফ্রান্সের জয় নিশ্চিত করেন কিলিয়ান এমবাপ্পেই। শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স।

আর্জেন্টিনাকে ‘প্রথম ফাইনাল’ জেতালেন মেসি
মেক্সিকোর বিপক্ষে ম্যাচটি আর্জেন্টিনার জন্য বাঁচামরার লড়াই ছিল। আর এই ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে আলবেসিলেস্তে কোচ লিওনেল স্কালোনি বলেছিলেন, এখন থেকে প্রতিটি ম্যাচ আমাদের জন্য ফাইনাল। আর মেক্সিকোর বিপক্ষে এমন ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে জয় এনে দিলেন লিওনেল মেসিই। ম্যাচে সবাই যখন মেক্সিকান দেওয়ালের কাছে হার মানছিলেন তখনই আর্জেন্টিনার ত্রাতা হয়ে আসলেন লিওনেল আন্দ্রেস মেসি। ডি বক্সের ডান দিক থেকে ডি মারিয়ার পাস পেয়ে একটুখানি এগিয়ে গিয়ে দূরপাল্লার শটে লক্ষ্যভেদ লিওনেল মেসির। আর এই গোলেই ম্যাচের ভাগ্য লেখা হলো। এরপর শেষ দিকে এসে লিওনেল মেসির পাস থেকে এনজো ফার্নান্দেজ দুর্দান্ত এক গোল করে জয় নিশ্চিত করেন।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি