1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : nowshad Uddin : nowshad Uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৫৮ পূর্বাহ্ন

প্রাণহীন পর্যটনকেন্দ্র জাফলং ও বিছনাকান্দি

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১৯ মে, ২০২১

নদী, পাহাড়, চা বাগান আর পাহাড়ি ঝর্ণার অপরূপ রূপ লাবণ্য যেন উথলে উঠেছে গোয়াইনঘাটের পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে। বৃষ্টিপাতের পর পাহাড়-টিলা ও চা বাগানের প্রকৃতি যেন সবুজের ডানা মেলেছে। নয়নাভিরাম এসব সৌন্দর্য অবলোকন করতে এই ভরা মৌসুমে প্রতিদিন যেখানে লাখো পর্যটকের পদচারণায় মুখর থাকার কথা, সেখানে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় সরকারি বিধিনিষেধের কারণে পর্যটক না থাকায় প্রাণহীন হয়ে পড়েছে দেশের অন্যতম পর্যটনকেন্দ্র নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার প্রকৃতিকন্যা জাফলং, পান্তুমাই ঝর্ণা, সোয়াম্প ফরেস্ট রাতারগুল ও জল পাথরের বিছনাকান্দি।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ৩১ মার্চ থেকে সিলেটসহ দেশের সব পর্যটনকেন্দ্র বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় সরকার। দ্বিতীয় ধাপে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার এ সিদ্ধান্ত নেয়। প্রথমে দুই সপ্তাহের জন্য পর্যটন কেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এখনও তা বহাল রয়েছে। ফলে টানা প্রায় দেড় মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ রয়েছে জাফলং, বিছনাকান্দিসহ গোয়াইনঘাটের অন্য পর্যটনকেন্দ্রগুলো।

সরকারি এ বিধিনিষেধের কারণে ঈদের ছুটিতে ভ্রমণে আসা পর্যটকদের জাফলং, বিছনাকান্দিসহ অন্য পর্যটন স্পটগুলোতে প্রবেশ ঠেকাতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পর্যটকদের পর্যটনকেন্দ্রে প্রবেশে বাধা দিচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ, থানা পুলিশ ও বিজিবি।

ঈদের দিন থেকে সিলেটের গোয়াইনঘাটের পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটক-দর্শনার্থীর আগমন বন্ধ রাখতে জাফলংয়ের জিরো পয়েন্ট, বল্লাঘাট, সংগ্রাম বিজিবি ক্যাম্প ও এর আশপাশের এলাকা, আদিবাসী খাসিয়া পল্লি এবং জাফলং চা বাগান এলাকায় কোনো ধরনের জনসমাগম যাতে না ঘটে, সেজন্য একাধিক তল্লাশি চৌকি বসিয়ে রাস্তা থেকেই পর্যটকদের ফিরিয়ে দিচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের নলজুরি, গুচ্ছগ্রাম ও গোয়াইনঘাটের বঙ্গবীর পয়েন্টে ট্যুরিস্ট পুলিশ সদস্যরা পর্যটকবাহী সব ধরনের যানবাহন ফিরিয়ে দিচ্ছেন। ঈদের ছুটিতে জাফলং ও বিছনাকান্দিতে বেড়াতে আসা পর্যটক বহনকারী প্রাইভেটকার, বাস, মাইক্রোবাস, পিকআপ ও মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ফলে ভ্রমণে আসা পর্যটকরা পর্যটনকেন্দ্রে প্রবেশ করতে না পেরে ফিরে যাচ্ছেন।

এ বিষয়ে ট্যুরিস্ট পুলিশ জাফলং জোনের ওসি রতন শেখ জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে পর্যটন এলাকাকে সুরক্ষিত রাখতে পর্যটক-দর্শনার্থীদের প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। জাফলংয়ের সব পর্যটন স্পট এখন পর্যটকশূন্য।

গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিলুর রহমান জানান, দেশে চলমান লকডাউন পরিস্থিতির মাঝেও ঈদের ছুটিতে গোয়াইনঘাটের পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটকরা ভিড় করছিলেন। সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে বিশেষ করে জাফলং আর বিছনাকান্দিতে ঈদ-পরবর্তী দিনগুলোতে প্রচুর পর্যটকের সমাগম ঘটে। তাই করোনা সংক্রমণ রোধে পরিস্থিতি বিবেচনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় আগত পর্যটকদের মূল পর্যটনকেন্দ্রে প্রবেশের আগেই তাদের গতি রোধ করে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি