1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৯:০৩ অপরাহ্ন

ব্যবসায়ি জাকিরের বিরুদ্ধে দাখিলকৃত অভিযোগ মিথ্যে : তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১

ক্রিসেন্ট মেডিকেল সার্ভিস ও ক্রিসেন্ট ব্লাড ব্যাংকের মালিক ব্যবসায়ি ও সমাজসেবী জাকির আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, আয়কর কার্যালয় ও সিভিল সার্জন বরাবরে মিথ্যে বর্ণনায় অশালিন ভাষায়, নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে আবেদন করা হয়। এয়ারপোর্ট এলাকার বড়শলা গ্রামের মোঃ শাহদাতুজ্জামান জোহা এই আবেদন করেন।

সাম্প্রতিক সময়ে জোহার প্রেরিত অভিযোগগুলো তদন্ত শেষে এসএমপি পুলিশ, আয়কর বিভাগ, সিভিল সার্জন ও স্বাস্থ্য বিভাগ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। ওই তদন্ত প্রতিবেদন গুলোতে জাকির আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে কোন ধরণের সত্যতা পাওয়া যায়নি বলে উল্লেখ করা হয়েছে। https://googleads.g.doubleclick.net/pagead/ads?client=ca-pub-9297493780021522&output=html&h=280&adk=91146109&adf=3130211040&pi=t.aa~a.148600082~i.3~rp.4&w=730&fwrn=4&fwrnh=100&lmt=1620136648&num_ads=1&rafmt=1&armr=3&sem=mc&pwprc=1194519437&psa=1&ad_type=text_image&format=730×280&url=https%3A%2F%2Fsylhetsun.com%2Fmain%2Farticle%2F8253%3Ffbclid%3DIwAR0H2t3PtS2zbD_Jj23eTlmSSC9k4uCIfWWaP4mWPos9hGwPfVfYpsgg7i8&flash=0&fwr=0&pra=3&rh=183&rw=730&rpe=1&resp_fmts=3&wgl=1&fa=27&dt=1620136646363&bpp=12&bdt=3767&idt=12&shv=r20210429&cbv=%2Fr20190131&ptt=9&saldr=aa&abxe=1&cookie=ID%3D4601cc9a4585b721-2290e11910c50022%3AT%3D1607282452%3ART%3D1607282452%3AS%3DALNI_MbFz7cIzYDsNH5_5q5pWBcG06hDYw&prev_fmts=0x0%2C1349x654&nras=3&correlator=6248363411226&frm=20&pv=1&ga_vid=860594129.1620136646&ga_sid=1620136646&ga_hid=473397620&ga_fc=0&u_tz=360&u_his=1&u_java=0&u_h=768&u_w=1366&u_ah=728&u_aw=1366&u_cd=24&u_nplug=0&u_nmime=0&adx=120&ady=1393&biw=1349&bih=654&scr_x=0&scr_y=0&eid=44739548%2C182982000%2C182982200%2C31060742&oid=3&pvsid=3791540719750433&pem=180&ref=https%3A%2F%2Fl.facebook.com%2F&eae=0&fc=1408&brdim=-8%2C-8%2C-8%2C-8%2C1366%2C0%2C1382%2C744%2C1366%2C654&vis=1&rsz=%7C%7Cs%7C&abl=NS&fu=128&bc=31&ifi=2&uci=a!2&btvi=1&fsb=1&xpc=4txHKOoM0g&p=https%3A//sylhetsun.com&dtd=1864


তদন্ত প্রতিবেদন গুলোর মধ্যে, সিলেট কর অঞ্চল সার্কেল-১ (কোম্পানী) এর কর পরিদর্শক বাবুল কান্তি দাশ তার তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন, জোহার অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরেজমিনে পরিদর্শন, স্থানীয় লোকজনের বক্তব্য, করদাতার বক্তব্য নিয়ে তদন্তকালে জাকির আহমদ চৌধুরীর আয়ের উৎস সর্ম্পকে খোঁজ নিয়ে জানেন, পাথর হতে কমিশন আয়, ক্রিসেন্ট মেডিকেল সার্ভিস,  ক্রিসেন্ট ব্লাড ব্যাংক, আইডিয়াল এন্ড ক্রিসেন্ট ডেন্টাল ক্লিনিক হতে আয়, গৃহ সম্পত্তি খাতে আয়সহ অন্যান্য সূত্র থেকে আয় করছেন জাকির। নিয়মিত সরকারী কর প্রদান করছেন তিনি।

তাছাড়া জাকির ও তার পরিবারের ব্যবহৃত ৩ টি গাড়ি বৈধ উপায়ে সরকারী ভ্যাট, ট্যাক্স দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। আর জাকির আহমদ চৌধুরী তার নিজস্ব বাড়িতে বসবাস করেন। তার সামাজিক অবস্থান ভালো, জীবনযাত্রার মান উন্নত। 


গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর এডিসি (ক্রাইম নর্থ)/২৪৭ নং স্মারকে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ-উত্তর) শাহরিয়ার আল মামুন অনুসন্ধানী প্রতিবেদন দাখিল করেন। তদন্ত প্রতিবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, মোঃ শাহদাতুজ্জামান জোহার দাখিলকৃত অভিযোগটি পর্যালোচনা ও বিভিন্ন মাধ্যমে তদন্ত করা হয়। সার্বিক তদন্তে জানা যায়, জাকির আহমদ চৌধুরীর ছোট ভাই ইশফাক আহমদ চৌধুরীর এয়ারপোর্ট থানাধীন বড়শলা নতুন বাজারে রড, সিমেন্ট ও ঢেউ টিনের ব্যবসা রয়েছে। তার দোকানে মাদক ব্যবসা, শিলং তীর, জুয়া খেলার বিষয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও সাক্ষ্য প্রমাণে সত্যতা পাওয়া যায় নি। তাছাড়া জাকির আহমদ চৌধুরীর পিতা ব্রিটিশ আমলে ১৯৩৫ সালে এন্ট্রান্স (এসএসসি) প্রথম বিভাগে পাস করেন এবং সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ছিলেন। https://googleads.g.doubleclick.net/pagead/ads?client=ca-pub-9297493780021522&output=html&h=280&adk=91146109&adf=4272171823&pi=t.aa~a.148600082~i.9~rp.4&w=730&fwrn=4&fwrnh=100&lmt=1620136648&num_ads=1&rafmt=1&armr=3&sem=mc&pwprc=1194519437&psa=1&ad_type=text_image&format=730×280&url=https%3A%2F%2Fsylhetsun.com%2Fmain%2Farticle%2F8253%3Ffbclid%3DIwAR0H2t3PtS2zbD_Jj23eTlmSSC9k4uCIfWWaP4mWPos9hGwPfVfYpsgg7i8&flash=0&fwr=0&pra=3&rh=183&rw=730&rpe=1&resp_fmts=3&wgl=1&fa=27&dt=1620136646383&bpp=4&bdt=3787&idt=4&shv=r20210429&cbv=%2Fr20190131&ptt=9&saldr=aa&abxe=1&cookie=ID%3D4601cc9a4585b721-2290e11910c50022%3AT%3D1607282452%3ART%3D1607282452%3AS%3DALNI_MbFz7cIzYDsNH5_5q5pWBcG06hDYw&prev_fmts=0x0%2C1349x654%2C730x280&nras=4&correlator=6248363411226&frm=20&pv=1&ga_vid=860594129.1620136646&ga_sid=1620136646&ga_hid=473397620&ga_fc=0&u_tz=360&u_his=1&u_java=0&u_h=768&u_w=1366&u_ah=728&u_aw=1366&u_cd=24&u_nplug=0&u_nmime=0&adx=120&ady=2169&biw=1349&bih=654&scr_x=0&scr_y=0&eid=44739548%2C182982000%2C182982200%2C31060742&oid=3&pvsid=3791540719750433&pem=180&ref=https%3A%2F%2Fl.facebook.com%2F&eae=0&fc=1408&brdim=-8%2C-8%2C-8%2C-8%2C1366%2C0%2C1382%2C744%2C1366%2C654&vis=1&rsz=%7C%7Cs%7C&abl=NS&fu=128&bc=31&ifi=3&uci=a!3&btvi=2&fsb=1&xpc=nl4wXcVGCz&p=https%3A//sylhetsun.com&dtd=1877


প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বড়শলা গ্রামের মসজিদের তহবিল নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এর জের ধরে এয়ারপোর্ট থানায় জিডিও রয়েছে। তবে জোহার অভিযোগে আনিত জাকির আহমদ চৌধুরী জামাত শিবিরের সাথে জড়িত বা অবৈধ ব্লাড ব্যাংক স্থাপন করে ব্যবসা করা, সরকারি রাজস্ব বোর্ডের কর ফাঁকি দেওয়া, মাদক সেবনে আশ্রয় দেওয়ার বিষয়ে সত্যতা পাওয়া গেল না। ওই প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, মসজিদ নিয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে মিথ্যা হয়রানি মূলক মামলা দায়ের করা সহ আইন-শৃঙ্খলার অবনতি না ঘটে, সে দিকে সর্তক দৃষ্টি রাখার জন্য অফিসার ইনচার্জ, এয়ারপোর্ট থানাকে নির্দেশ প্রদান করা হয়। 


এদিকে, গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) (স্মারক নং ১২৩৭) সিভিল সার্জন কার্যালয়, সিলেটে তদন্ত করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সিলেট সদর উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও তদন্ত কমিটির সভাপতি ডা. আহমদ সিরাজুম মুনীর,  তদন্ত কমিটির সদস্য ও মেডিকেল অফিসার (সিএস) ডা. আমজাদ হোসেন, তদন্ত কমিটির সদস্য ও মেডিকেল অফিসার (ডিসি) ডা. মির্জা লুৎফুল বারী। তদন্ত শেষে ওই বছরের ১ অক্টোবর তদন্ত কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এতে উল্লেখ করা হয়, মোঃ শাহদাতুজ্জামান জোহা (৩৫) তার অভিযোগে অনেকগুলো প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ করেছেন। তন্মধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে সংশ্লিষ্ট ক্রিসেন্ট মেডিকেল সার্ভিস, ক্রিসেন্ট ব্লাড ব্যাংক, এবং ক্রিসেন্ট ডেন্টাল ক্লিনিক। ওই তিনটি প্রতিষ্ঠান সরজমিনে পরিদর্শন/নথিপত্র পর্যালোচনা ও জাকির আহমদ চৌধুরীর লিখিত বক্তব্য পর্যালোচনা করে জোহার দাখিলকৃত অভিযোগগুলো প্রমাণ করা সম্ভব হয় নাই।   https://googleads.g.doubleclick.net/pagead/ads?client=ca-pub-9297493780021522&output=html&h=280&adk=91146109&adf=3533913583&pi=t.aa~a.148600082~i.13~rp.4&w=730&fwrn=4&fwrnh=100&lmt=1620136649&num_ads=1&rafmt=1&armr=3&sem=mc&pwprc=1194519437&psa=1&ad_type=text_image&format=730×280&url=https%3A%2F%2Fsylhetsun.com%2Fmain%2Farticle%2F8253%3Ffbclid%3DIwAR0H2t3PtS2zbD_Jj23eTlmSSC9k4uCIfWWaP4mWPos9hGwPfVfYpsgg7i8&flash=0&fwr=0&pra=3&rh=183&rw=730&rpe=1&resp_fmts=3&wgl=1&fa=27&dt=1620136646393&bpp=5&bdt=3796&idt=5&shv=r20210429&cbv=%2Fr20190131&ptt=9&saldr=aa&abxe=1&cookie=ID%3D4601cc9a4585b721-2290e11910c50022%3AT%3D1607282452%3ART%3D1607282452%3AS%3DALNI_MbFz7cIzYDsNH5_5q5pWBcG06hDYw&prev_fmts=0x0%2C1349x654%2C730x280%2C730x280%2C350x280&nras=6&correlator=6248363411226&frm=20&pv=1&ga_vid=860594129.1620136646&ga_sid=1620136646&ga_hid=473397620&ga_fc=0&u_tz=360&u_his=1&u_java=0&u_h=768&u_w=1366&u_ah=728&u_aw=1366&u_cd=24&u_nplug=0&u_nmime=0&adx=120&ady=2397&biw=1349&bih=654&scr_x=0&scr_y=0&eid=44739548%2C182982000%2C182982200%2C31060742&oid=3&pvsid=3791540719750433&pem=180&ref=https%3A%2F%2Fl.facebook.com%2F&eae=0&fc=1408&brdim=-8%2C-8%2C-8%2C-8%2C1366%2C0%2C1382%2C744%2C1366%2C654&vis=1&rsz=%7C%7Cs%7C&abl=NS&fu=128&bc=31&ifi=4&uci=a!4&btvi=4&fsb=1&xpc=gwiRUvaJCE&p=https%3A//sylhetsun.com&dtd=2614


এর পূর্বে জোহা তার অভিযোগে উল্লেখ করে, জাকির ২০০০ সালে স্বল্প বেতনে জামায়াত পরিচালিত সিলেট নগরীর চৌহাট্টাস্থ লাইসেন্স বিহীন ‘ক্রিসেন্ট ব্লাড ব্যংকে’ চাকুরি নেন। জামায়াত-শিবিরের কর্মী হওয়ার সুবাদে এক সময় সে মালিক হয়ে যায় ওই ক্রিসেন্ট ব্লাড ব্যাংক নামীয় প্রতিষ্ঠানের। এরপর সে অবৈধ উপায়ে  ডাক্তার, টেকনোলজিস্ট, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ছাড়া ব্যবসা করে প্রচুর টাকার মালিক হয়ে যায় । অবৈধ ব্লাড ব্যাংক পরিচালনার অভিযোগে কয়েক বছর আগে জরিমানা ও সিলগা

লা করে র‌্যাব। অভিযোগে তিনি জানান, জাকির ৩টি গাড়ি, বহুতল বাড়ি, হোটেল, ডায়াগনস্টিকসহ ৭-৮টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক।
তার মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছ- সিলেট নগরীর কাজলশাহ এ ক্রিসেন্ট মেডিকেল সার্ভিস, চৌহাট্টার দরগা মহল্লাস্থ ক্রিসেন্ট ব্লাড ব্যাংক, স্টেডিয়াম মার্কেটে ক্রিসেন্ট ডেন্টাল ক্লিনিক, দরগা মহল্লাস্থ হোটেল ক্রিসেন্ট গার্ডেন, এয়ারপোর্ট রোডের মংলিবাগে বিনিময় হাউজিং, এয়ারপোর্টের নয়াবাজারে ওসমানী বিমানবন্দরের ভূমিতে মেসার্স  ইসফাক আহমদ চৌধুরী (রড সিমেন্ট ঢেউটিনের দোকান)।


আর তখন থেকেই এসব অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে জাকির আহমদ চৌধুরী বলেছেন- তার এলাকার একটি নিম্ন শ্রেণী (ভিক্ষক) পরিবারের শত্রু পক্ষ এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে। সেই শত্রুপক্ষের একাধিক সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে প্রায় ২০ টির উপরে পুলিশ এসল্টসহ নিকৃষ্ট মামলা রয়েছে এবং তাদের গডফাদাররা মামলা মোকদ্দমা তদারকি করছে। 


তার ব্লাড ব্যাংক সিলেটের একমাত্র বৈধ জানিয়ে তিনি বলেন, কখনো জরিমানা বা সিলগালা করে নি। প্রতিষ্ঠানটির জন্মদাতা একজন হিন্দু ভদ্রলোক। তার নিকট থেকে তিনি ক্রয় করেছেন। তার প্রতিষ্ঠানে কোনো রক্ত কেনাবেচা হয় না। 


তিনি বলেন, সেই ব্রিটিশ আমল থেকে তারা ধনাঢ্য। তার পরিবারের সকলেই স্থায়ী/অস্থায়ী ভাবে ইংল্যান্ড/ইউরোপে বসবাস করেন। তিনি কোনো প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করেননি। শুরু থেকেই ব্যবসা করে আসছেন। সরকারকে প্রতিবছর লক্ষ লক্ষ টাকা ট্যাক্স পরিশোধ করেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত গাড়ি ভাংচুর মামলা মিথ্যা বলে দাবি করেন তিনি।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি