1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : nowshad Uddin : nowshad Uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন

‘ভারতের উসকানিতে পার্লামেন্ট ভেঙেছে নেপালের’

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নেপালের পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার পেছনে ভারতের উসকানি রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী এবং কমিউনিস্ট পার্টির চেয়ারম্যান পুষ্প কমল দহল প্রচণ্ড। খবর কাঠমুন্ডু পোস্ট।

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) রাজধানী কাঠমান্ডুর নেপাল অ্যাকাডেমি হলে কমিউনিস্ট পার্টি আয়োজিত এক সভায় বক্তৃতা রাখতে গিয়ে এ অভিযোগ তোলেন প্রচণ্ড। সেখান থেকেই শাসক দলে ভাঙনের জন্য সরাসরি প্রধানমন্ত্রী ওলিকে দায়ী করেছেন তিনি।

প্রচণ্ড বলেন, কমিউনিস্ট পার্টিরই কিছু নেতা ভারতের হয়ে সরকার উল্টোনোর কাজ করেছেন। ভারতের গুপ্তচর সংস্থা ‘র’-এর প্রধান সামন্ত গয়ালের সঙ্গে ওলি নিভৃতে নিজের বাসভবনে দেখা করেছেন বলেও জানিয়েছেন প্রচণ্ড।

তার দাবি, কোনো তৃতীয় পক্ষ সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিল না। তা হলে কি ভারতের নির্দেশেই সরাসরি পার্লামেন্ট ভেঙেছেন ওলি?

তিনি আরও বলেন, নেপালের মানুষ আসল কথা জেনে ফেলেছেন। আর এভাবে পার্লামেন্ট ভেঙে নেপালের মতো গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রকে বিশাল ধাক্কা দিয়েছেন ওলি – অভিযোগ তোলেন প্রচণ্ড।

এর আগে, ২০ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা সংকটের প্রেক্ষিতে প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভাণ্ডারির কাছে পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। তারপরেই, প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধ মেনে ২৭৫ আসনের পার্লামেন্ট ভেঙে দেন প্রেসিডেন্ট।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে কেপি শর্মা ওলি এবং প্রচণ্ডের মাওবাদী দল মিলে তৈরি করেছিল নেপালের কমিউনিস্ট পার্টি (এনসিপি)। পারস্পারিক সমঝোতার ভিত্তিতে ওলি দেশের প্রধানমন্ত্রী হন। কিন্তু, কয়েক মাস পর থেকেই শীর্ষ দুই নেতার দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে আসে। দলেও তৈরি হয় দুটি গ্রুপ। এরপর থেকেই প্রচণ্ড এবং তার গ্রুপের সদস্যরা নেপালের রাস্তায় ওলির বিরুদ্ধে একাধিক বার বিক্ষোভ দেখিয়েছেন।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি ভারত। ভারতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, ওলি যা করেছেন, তা নেপালের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

ওদিকে, দুই দিনের সফরে দিল্লি পৌঁছেছেন নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা প্রদীপ গ্যাওয়ালি। শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে তার বৈঠকে বসার কথা রয়েছে। নেপালের পার্লামেন্ট ভাঙার পরে এই প্রথম নেপালের কোনো মন্ত্রী ভারত সফরে গেলেন। কূটনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়নের পাশাপাশি করোনা টিকা নিয়ে দুই দেশের আলোচনা হওয়ার কথা।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি