1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : nowshad Uddin : nowshad Uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:২৮ অপরাহ্ন

ভারতে তুষারধসে মৃত্যু ১৪, নিখোঁজ ১৭০

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

ভারতের উত্তরখণ্ডের জোশিমঠের চামোলি জেলায় তুষারধসে ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন ৬ জন। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন ১৭০ জন।

স্থানীয় সময় রোববার সকালে চামোলি জেলার অলকানন্দ ও ধৌলিগঙ্গা নদীর উপর হিমবাহ ভেঙে পড়ে। খবর এনডিটিভি ও টাইম অব ইন্ডিয়ার

গত ৪, ৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি ওই এলাকায় চলছিল বৃষ্টিপাত। সঙ্গে তুষারপাতও। তারই মধ্যে শনিবার দিবাগত ১০ টা ৫৫ মিনিটে ভাঙে জোশীমঠে নন্দাদেবীর হিমবাহ। রোববার সকালে সেই ধস আরও ভয়াবহ আকার নেয়।

স্রোতের তোড়ে ইতোমধ্যে বিভিন্ন এলাকার পাঁচটি ব্রিজ ভেসে গেছে। বাড়ি-ঘরের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

হঠাৎ পাহাড়ি ঢল ও বন্যার আশঙ্কায় অনেক গ্রাম থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। তীব্র স্রোতের তোড়ে ঋষিগঙ্গার হাইড্রো পাওয়ার প্রজেক্ট ভেসে গেছে।

তিন বাহিনীর সমন্বয়ে চলছে উদ্ধারকাজ। একটি টানেলের মধ্যে আটকে পড়া ১২ শ্রমিককে ইতোমধ্যে উদ্ধার করা হয়েছে। আরেকটি টানেলের মধ্যে ৩০ জন আটকা পড়েছে। তাদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

যারা মারা গেছে তাদের পরিবারকে ৪ লাখ রূপি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন উত্তরখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিভেন্দ্র সিং রাওয়াত।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বলছে, ঋষিগঙ্গা নদীর উপর তৈরি হওয়া বিদ্যুৎ প্রকল্পটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নির্মাণাধীন ওই প্রকল্পে কাজ করছিলেন বেশ কিছু শ্রমিক। তারাও এই দুর্ঘটনার মুখোমুখি হয়েছেন।

ধৌলিগঙ্গা হিমবাহ ধসের কারণে তপোবনও ক্ষতির মুখে পড়েছে। সেখানের বাঁধও এই সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে। এই ধ্বংসযজ্ঞে কতটা ক্ষতি হয়েছে তা পুরোপুরি পরিষ্কার নয়।

উত্তরাখণ্ডের চার জেলায় হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। উদ্ধার কাজের জন্য শ’খানেক আইটিবিপি জওয়ানকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী।

এছাড়া দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ত্রাণ তহবিল থেকে আরও ২ লাখ করে রূপি দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। যারা গুরুতর আহত হয়েছেন তাদের ৫০ হাজার রূপি দেওয়া হবে।

নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, উত্তরাখণ্ডের এই দুর্ভাগ্যজনক পরিস্থিতির উপর আমি নজর রাখছি। ভারত উত্তরাখণ্ডের সঙ্গে রয়েছে। সবার সুরক্ষার জন্য প্রার্থনা করছি আমরা। উচ্চপদস্ত কর্তৃপক্ষের সঙ্গে অবিচ্ছিন্নভাবে কথা বলা হচ্ছে। এনডিআরএফ মোতায়েন, উদ্ধার কাজ এবং ত্রাণ কার্যক্রম বিষয়ে খবর নিচ্ছি।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি