1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০১ পূর্বাহ্ন

ভয়াবহ সমুদ্রযাত্রায় অসুস্থ বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২ জুলাই, ২০২২

সমুদ্রযাত্রা নিয়ে আগে থেকেই ভয়, আপত্তি ছিল ক্রিকেটারদের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ ডমিনিকায়। সেন্ট লুসিয়া থেকে ডমিনিকায় ফেরিতে সমুদ্রপথে যাত্রা। অনিচ্ছা স্বত্বেও সমুদ্রপথে এই যাত্রা করতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বাংলাদেশ দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার।


যাত্রার আধাঘণ্টার মধ্যেই উত্তাল সমুদ্রের ঢেউ আর ‘মোশন সিকনেসে’ আক্রান্ত হয়ে অনবরত বমি করতে থাকেন ক্রিকেটাররা। বেশি সমস্যায় দেখা গেছে পেসার শরিফুল ইসলাম, উইকেটরক্ষক ব্যাটার নুরুল হাসান সোহান ও ম্যানেজার নাফিস ইকবালের।

অবস্থা বেগতির দেখে মাঝপথে যাত্রা বাতিল করে বিমানে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়। টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ যাত্রাপথেই বিসিবির সঙ্গে যোগাযোগ করেন। কিন্তু বাস্তবতা হলো, অতো দ্রুত সময়ের মধ্যে ভিসা ও বিমানের টিকিট ব্যবস্থা করা সম্ভব না। ফলে ভয়, আতঙ্ক নিয়েই পাঁচ ঘণ্টার সমুদ্রযাত্রা শেষ করতে হয়েছে ক্রিকেটারদের। এমন পরিস্থিতির কারণে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ক্রিকেটাররা।


দ্বিপক্ষীয় সিরিজের সফর পরিকল্পনা স্বাগতিক বোর্ডই করে। তবে সফরকারী বোর্ড যাচাইবাছাই করে সম্মত হলে তবেই চূড়ান্ত হয় বিষয়টি। সেক্ষেত্রে বিসিবির সুযোগ ছিল সমুদ্রযাত্রা এড়িয়ে বিমানযাত্রার প্রস্তাব দেওয়া।

অসুস্থ হয়ে পড়া এক ক্রিকেটারকে বলতে শোনা গেছে, ‘এখানে অসুস্থ হয়ে মরলে তো আমরা মরব, কারো তো কিছু হবে না!’

ওয়েস্ট ইন্ডিজে খেলতে এলে অন্য বিদেশী দলগুলো এভাবে সমুদ্র পথে ডমিনিকা যায় না। এমনকি ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলও আন্তর্জাতিক সিরিজ খেলতে এভাবে সমুদ্র পথে যাত্রা করে না।


ডমিনিকায় আগামীকাল প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। মাঝে এক দিনের বিরতিতে অসুস্থ হয়ে পড়া ক্রিকেটাররা কতোটা সুস্থ হয়ে উঠেন সেটাই এখন বড় প্রশ্ন।

সেন্ট লুসিয়ার ক্যাস্ট্রিস ফেরি টার্মিনাল থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় মার্টিনেক হয়ে ডমিনিকার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় বাংলাদেশ দল। এমন অভিজ্ঞতা আগে কখনো হয়নি বলে ফেরি ছাড়ার সময় বেশ উল্লাস, হই-হুল্লোড় করতেই দেখা গেছে ক্রিকেটারদের। কিন্তু খানিক বাদেই পরিস্থিতি পাল্টাতে থাকে।


৬-৭ সাত ফুট উচ্চাতার ঢেউয়ে উথাল-পাথাল অবস্থা। এদিকে ফেরির আকাড়ও বড় ছিল না। ডলফিন চ্যানেল পাড়ি দেওয়ার সময় ঢেউয়ের পরিমান ছিল বেশি। আগে থেকেই ফেরিযাত্রায় অসম্মতি দেওয়া ক্রিকেটাররা তাতে ভয় পেয়ে যান ‘মোশন সিকনেসে’ আক্রান্ত হতে থাকেন একের পর এক ক্রিকেটার।

সেন্ট লুসিয়া থেকে দেড় ঘণ্টার পথ মার্টিনেকে পৌঁছাতেই সবাই কাবু। পরে যাত্রা বাতিল করে বিমান যোগে যাত্রার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু স্বল্প সময়ের মধ্যে সেটা সম্ভব হয়ে উঠেনি।

অবশ্য অন্যদের অসুস্থতার ভিড়ে সাকিব আল হাসান, এনামুল হক বিজয়, মোসাদ্দেক হোসেন ছিলেন বেশ সতেজ। সাকিবকে সমুদ্রযাত্রা বেশ উপভোগ করতেই দেখা গেছে।

ডমিনিকায় তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজটি ২ জুলাই। সিরিজের পরবর্তী দুই ম্যাচ ৩ ও ৭ জুলাই।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি