1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  3. nooruddinrasel22@gmail.com : Noor Uddin : Noor Uddin
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৫৮ অপরাহ্ন

মুমিনুল-শান্তর ৪ বলের আক্ষেপ!

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১

পাল্লেকেলেতে রানের দিক দিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসের ৫ম সর্বোচ্চ জুটি গড়লেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুমিনুল হক। রানের হিসেবে সর্বোচ্চ জুটি গড়তে না পারলেও বল খেলার দিক দিয়ে সর্বোচ্চ জুটির অনেক কাছে পৌঁছে গিয়েছিলেন শান্ত-মুমিনুল। তবে আক্ষেপটা মাত্র ৪ বলের রয়ে গেল!

লংকা সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে ১৫২ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটে টাইগারদের। তামিম ইকবাল ৯০ রানে আউট হলে উইকেটে আসেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। আর তরুণ নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে গড়েন রেকর্ড জুটি।

২০১৩ সালে মোহাম্মদ আশরাফুল ও মুশফিকুর রহিমের ৫ম উইকেটে ২৬৭ রানের জুটিটা আছে তিন নম্বরে। মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিমের ৪র্থ উইকেটে ঢাকাতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২৬৬ রানের জুটি আছে চার নম্বরে। আর নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুমিনুল হকের তৃতীয় উইকেটে গড়া এই জুটি এখন টাইগারদের পঞ্চম সর্বোচ্চ রানের জুটি। শেষ পর্যন্ত এই জুটি থামে ২৪২ রানে।

তবে রানের হিসেবে চতুর্থ সর্বোচ্চ হলেও বল খেলার দিক দিয়ে শান্ত-মুমিনুলের জুটিটি বাংলাদেশের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জুটি। আর এই তালিকার শীর্ষে আছে ২০১৩ সালে মুশফিকুর রহিম ও মোহাম্মদ আশরাফুলের রেকর্ড গড়া জুটিটা। গলে লঙ্কানদের বিপক্ষে ৫ম উইকেটে ইনিংসের ৫৪ থেকে ১৪১তম ওভার পর্যন্ত ব্যাট করেন আশরাফুল ও মুশফিক। আর ৫১৮ বল খেলা এই জুটিটাই বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জুটি।

এরপরেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চলতি টেস্টে নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুমিনুল হক গড়লেন বল খেলার দিক দিয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জুটি। ইনিংসের ৩৯তম ওভারের ৩য় বলে তামিম ফিরলে উইকেটে আসেন মুমিনুল। এরপর ১২৪তম ওভারের প্রথম বলে শান্ত ফিরলে ভাঙে ৫১৪ বল খেলা এই জুটিটা। আর রয়ে যায় মাত্র ৪টি বল খেলার আক্ষেপ।

রেকর্ডের বইয়ে তিন নম্বরে আছে ২০০৫ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে জাবেদ ওমর বেলিম এবং শাহরিয়ার নাফিসের উদ্বোধনী জুটির ইনিংসটি। উদ্বোধনী জুটিতে এই দুই ব্যাটার ৪৯৮ বল খেলে করেন ১৩৩ রান। যা বাংলাদেশের ইতিহাসে বল খেলার দিক দিয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ।

চার নম্বরে আছে সাকিব আল হাসা ও মুশফিকুর রহিমের নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটনে খেলা ইনিংসটি। ৫ম উইকেটে সাকিব-মুশি খেলেছিলেন ৪৯৪টি বল। ইনিংসের ৪৪তম ওভারের ৪র্থ বলে উইকেতে আসেন মুশফিক আর ১২৫তম ওভারের ৫ম বলে ফেরেন তিনি। মাঝে এই দুই টাইগার ব্যাটার গড়েন দেশের ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের জুটি আর বল খেলার দিক দিয়ে চতুর্থ সর্বোচ্চ জুটি।

তালিকার পাঁচ নম্বরে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়সের দুর্দান্ত উদ্বোধনী জুটিটা। পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০১৫ সালের ওই সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৫৪ বল উইকেটে ছিলেন এই দুই ব্যাটার। ইনিংসের ৭৬ তম ওভারের ৪র্থ বলে ইমরুল কায়েস ফিরলে ভাঙে এই জুটি।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি