1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : nowshad Uddin : nowshad Uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
লক্ষিপাশা কমিউনিটি ক্লিনিকের হালচাল,সীমাহীন অনিয়ম ও দূর্নীতি,মানুষের ভোগান্তি চরমে! সিএইচসিপি দেলোয়ার হোসেন এর অনিয়ম-দূর্নীতির বিরুদ্ধে আসছে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন(পর্ব-০১) টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ টস জিতে ব্যাটিংয়ে স্কটল্যান্ড সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় কঠোর ব্যবস্থার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সয়াবিন তেলের দাম লিটারে বাড়ল ৭ টাকা ভয় নেই, আ’লীগ আছে রাজপথে: কাদের ফখরুল ইসলাম শাইস্তা’কে আওয়ামিলীগের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত করায় অভিনন্দন সাম্প্রদায়িক অস্থিতিশীলতাকারী দোষীদের শাস্তি দাবীতে ছাত্র অধিকার পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল কলেজছাত্রকে তুলে নিয়ে বিয়ে করলেন তরুণী বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা শুরু

‘সর্বাত্মক লকডাউনে’ কাজ ছাড়া কেউ বের হচ্ছে না

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১

করোনা সংক্রমণ রোধে শুরু হয়েছে ‘সর্বাত্মক লকডাউন’। আর এই লকডাউনকে কেন্দ্র করে বুধবার (১৪ এপ্রিল) সকাল থেকেই সিলেটের বিভিন্ন এলাকায় দোকানপাট খোলা হয়নি। এমনকি সাধারণ মানুষও বের হচ্ছে না বাইরে।

আজ সকাল ৬টা থেকে আগামী ২১ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত সাত দিন এই বিধিনিষেধ কার্যকর থাকবে। লকডাউনের প্রথম দিন ভোর থেকে সিলেট নগরীর সকল প্রবেশপথ ও গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে চৌকি বসিয়ে তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশ টহল দিচ্ছে। অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষও ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। ফলে নগরীর রাস্তাগুলো যান ও জনশূন্য রয়েছে।

নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, অতি প্রয়োজনে যারা রিকশা বা সিএনজি অটোরিকশা, মোটর সাইকেল নিয়ে বের হচ্ছেন তারা পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়ছেন। ঘর থেকে বের হওয়ার কারণ জানতে চাচ্ছে পুলিশ। প্রয়োজন ছাড়া কেউ বের হয়েছেন মনে করলে পুলিশ যানবাহন থেকে নামিয়ে দিচ্ছে যাত্রী। সংশ্লিষ্ট যানবাহনের বিরুদ্ধেও আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে পুলিশ।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) সকাল ৯টায় নগরীর রোজভিউ পয়েন্টে দেখা যায় পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়ছেন অনেক পথচারী ও যানবাহনের চালকরা। এসময় অনেকের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে পুলিশ।


সিলেট নগরীর বন্দরবাজার, আম্বরখানা, সুবিদবাজার, পাঠানটুলা, জিন্দাবাজার, শিবগঞ্জ, টিলাগড়সহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, স্বল্প সংখ্যক মোটরসাইকেল, রিকশা চলাচল করছে। তবে বেশিরভাগ মোটরসাইকেল লকডাউনের আওতামুক্ত জরুরি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার কর্মীদের। এছাড়া অনলাইনে পুলিশের মুভমেন্ট পাস নিয়েও কেউ কেউ রিকশায় করে বের হয়েছেন।

লকডাউনের কারণে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ও ফার্মেসি ছাড়া বাকি সবধরণের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ও ফার্মেসিতেও ক্রেতাদের ভিড় নেই।

এদিকে কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সিলেট জেলায় ২৬ ম্যাজিস্ট্রেসি টিম গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। প্রতিটি টিমে থাকবেন একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। যারা লকডাউন এবং স্বাস্থ্যবিধি বাস্তবায়নে মাঠপর্যায়ে মনিটরিং করবেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ.এইচ.এম. মাহফুজুর রহমান।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি