1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : nowshad Uddin : nowshad Uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪৪ পূর্বাহ্ন

৮ মেগা প্রকল্পের অগ্রগতি ৫৭ শতাংশ, এগিয়ে পদ্মাসেতু

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১

ঢাকা: সরকারের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারে থাকা মেগা ৮ প্রকল্পে গত ফেব্রুয়ারি গড় অগ্রগতি দাঁড়িয়েছে ৫৭ দশমিক ৫৬ শতাংশ। এই প্রকল্পগুলোতে এই সময় পর্যন্ত খরচ হয়েছে ১ লাখ ২২ হাজার ৫৩৯ কোটি ৬১ লাখ টাকা। প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়নে খরচ ধরা হয়েছে ২ লাখ ৭৮ হাজার ৯১১ কোটি টাকা। সে হিসাবে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রকল্পগুলোতে ব্যয় হয়েছে মোট খরচের অর্ধেকেরও কম— ৪৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ।

গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সরকারের অগ্রাধিকারে থাকা ফাস্ট ট্র্যাক প্রকল্পগুলোর অগ্রগতি প্রতিবেদনে এ চিত্র উঠে এসেছে। প্রকল্পগুলো হলো— পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র, পদ্মাসেতুতে রেল সংযোগ, মাতারবাড়ী বিদ্যুৎকেন্দ্র, পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর এবং দোহাজারী-রামু হয়ে কক্সবাজার ও রামু-মায়ানমারের কাছাকাছি ঘুমধুম পর্যন্ত সিংগেল লাইন ডুয়েলগেজ ট্র্যাক নির্মাণ প্রকল্প।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) প্রতিবেদনটি তৈরি করে পাঠিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যেও প্রকল্পগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে যথাসম্ভব কাজ চালিয়ে নেওয়া হচ্ছে। নির্ধারিত যে সময় রয়েছে, তার মধ্যেই প্রকল্পগুলো শেষ করার লক্ষ্য নিয়েই কাজ এগিয়ে চলছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী এই আট প্রকল্পের অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরা হলো এখানে—

পদ্মাসেতু

৩০ হাজার ১৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন হচ্ছে পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্প। এ প্রকল্পটির কার্যক্রম শুরু হয় ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে। কয়েক দফা মেয়াদ বাড়িয়ে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত করা হয়েছে। এখন আরও দুই বছর বাড়িয়ে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত করা হচ্ছে প্রকল্পটির মেয়াদ।

গত ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত পদ্মাসেতু প্রকল্পে ব্যয় হয়েছে ২৪ হাজার ৫৪৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা। পুরো প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি দাঁড়িছে ৮৪ দশমিক ৫০ শতাংশে। তবে মূল সেতুর কাজ হয়েছে ৯২ দশমিক ৫০ শতাংশ। ২০২২ সালের জুনে যানচলাচলের সেতুটি জন্য খুলে দেওয়া যাবে বলে আশা করছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

পদ্মাসেতু প্রকল্পের পরিচালক প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম সারাবাংলাকে বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনেই প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলছে। এক্ষেত্রে প্রকল্প এলাকায় কাউকে বাইরে থেকে ঢুকতে কিংবা প্রকল্প এলাকা থেকে কাউকে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না। কোনো কর্মী বাইরে গেলে তাকে কোয়ারেনটাইনে থাকতে হচ্ছে। বাইরের কোনো অতিথির প্রকল্প সাইটে যাওয়ার অনুমতি নেই। এছাড়া আমাদের এখানে ফিল্ড হাসপাতাল আছে। কেউ কোনো কারণে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার জন্য সেখানে প্রয়োজনীয় সেবার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

মেট্রোরেল

২১ হাজার ৯৮৫  কোটি টাকা ব্যয়ে এগিয়ে চলছে মেট্রোরেলের কাজ। ২০১২ সালের জুলাই থেকে প্রকল্পটির বাস্তবায়ন মেয়াদ শুরু হয়। শেষ হওয়ার কথা ২০২৪ সালের জুনের মধ্যে। শুরু থেকে গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রকল্পটিতে ব্যয় হয়েছে ১২ হাজার ৭০৫ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৫৮ দশমিক ৭২ শতাংশ। তবে এ বছরের মধ্যেই মেট্রোরেলের একটি অংশ চালুর পরিকল্পনা রয়েছে বাস্তবায়নকারী কর্তৃপক্ষের।

মেট্রোরেল পরিচালনায় গঠিত ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এন সিদ্দিকী সারাবাংলাকে বলেন, ‘আমাদের আশা ও প্রচেষ্টা রয়েছে— আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই আমরা প্রকল্পটির উত্তরা-আগারগাঁও অংশের কাজ শেষ করে ট্রেন চলাচল শুরু করতে পারব। এটি এমন একটি প্রকল্প যেটির মেয়াদ ও ব্যয় বাড়াতে হচ্ছে না।’

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র

এক লাখ ১৩ হাজার ৯২ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন হচ্ছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প। ২০১৬ সালের জুলাই মাসে এই প্রকল্পের বাস্তবায়ন শুরু হয়। প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হবে ২০২৫ সালের ডিসেম্বরে। গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই প্রকল্পে ব্যয় হয়েছে ৩৬ হাজার ৭১০ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। সার্বিক ও আর্থিক অগ্রগতি দাঁড়িয়েছে ৩২ দশমিক ৪৬ শতাংশে।

পদ্মাসেতুতে রেল সংযোগ

৩৯ হাজার ২৪৬ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হচ্ছে পদ্মাসেতুতে রেল সংযোগ প্রকল্পটি। এটির বাস্তবায়ন মেয়াদ শুরু হয় ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে। ২০২৪ সালের জুনে প্রকল্পটির কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রকল্পটিতে ব্যয় হয়েছে ১৫ হাজার ৩১৮ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। প্রকল্পটির ভৌত অগ্রগতি ৩৯ শতাংশ, আর্থিক অগ্রগতি ৩৯ দশমিক ০৩ শতাংশ।

মাতারবাড়ি বিদ্যুৎকেন্দ্র

৩৫ হাজার ৯৮৪ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হচ্ছে মাতারবাড়ি ১২০০ মেগাওয়াট আল্ট্রা সুপার  ক্রিটিক্যাল বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প। ২০১৪ সালের জুলাই থেকে ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে বাস্তবায়নের কথা রয়েছে প্রকল্পটির। ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রকল্পটিতে ব্যয় হয়েছে ১৫ হাজার ৬৫ কোটি ৬২ লাখ টাকা। প্রকল্পের আর্থিক অগ্রগতি হয়েছে ৪১ দশমিক ৮৭ শতাংশ এবং সার্বিক অগ্রগতি ৩৯ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প

১৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন হচ্ছে ১৩২০ মেগাওয়াট মৈত্রী সুপার থার্মাল পাওয়ার প্রজেক্ট (রামপাল) বিদ্যুৎকেন্দ্র। প্রকল্পটি ২০০৯ সালের জুলাই থেকে প্রকল্পটির বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। গত  ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রকল্পটিতে ব্যয় হয়েছে ১০ হাজার ১০৪ কোটি ৭৯ লাখ টাকা। প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি দাঁড়িয়েছে ৬৩ দশমিক ০৭ শতাংশ ও আর্থিক অগ্রগতি দাঁড়িয়েছে ৬৩ দশমিক ১৫ শতাংশে।

পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর

তিন হাজার ৩৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হচ্ছে পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দরের কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো ও সুবিধা উন্নয়নের প্রকল্প। ২০১৫ সালের জুলাই থেকে ২০২১ সালের জুনের মধ্যে বাস্তবায়নের লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে চলছে কাজ। ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই প্রকল্পে ব্যয় হয়েছে ২ হাজার ৭৩১ কোটি ৯২ লাখ টাকা। প্রকল্পের আর্থিক অগ্রগতি ৭৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ, ভৌত অগ্রগতি ৬২ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

দোহাজারী-রামু হয়ে কক্সবাজার ও রামু-মিয়ানমারের কাছে ঘুমধুম পর্যন্ত সিংগেল লাইন ডুয়েলগেজ ট্র্যাক নির্মাণ

১৮ হাজার ৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হচ্ছে দোহাজারী-রামু হয়ে কক্সবাজার ও রামু-মিনমারের নিকটে ঘুমধুম পর্যন্ত সিংগেল লাইন ডুয়েলগেজ ট্র্যাক নির্মাণ প্রকল্প। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ শুরু হয় ২০১০ সালের জুলাই থেকে। ২০২২ সালের জুনে কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রকল্পটিতে ব্যয় হয়েছে ৫ হাজার ৩৫৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা। প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ৫১ শতাংশ, আর্থিক অগ্রগতি ২৯ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

সরকারের অগ্রাধিকারে থাকা প্রকল্পগুলো নিয়ে জানতে চাইলে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, মেগা প্রকল্পগুলো সরকারের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারের প্রকল্প। এগুলোর বাস্তবায়ন যেন কোনো কারণে বাধাগ্রস্ত না হয়, সেদিকে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা আমাদের রয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যেও প্রকল্পগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কর্মকাণ্ড চালিয়ে নেওয়া সম্ভব। আশা করছি সেভাবেই কাজ হবে।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি