1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : uddin : uddin uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
  5. sultansumon2050@gmail.com : Sultan Sumon : Sultan Sumon
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৮:৪৩ পূর্বাহ্ন

শক্তভাবে ঘুরে দাঁড়ান, মানবাধিকারের জন্য সোচ্চার হোন: জাতিসংঘ

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২০

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিশ্ব মানবাধিকার দিবসে সবার প্রতি শক্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে মানবাধিকার রক্ষার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, মানবাধিকার রক্ষার্থে আমার আহ্বান হবে— এই সংকটকালীন মুহূর্তে মহামারি রোধ, লৈঙ্গিক সাম্য, জনসাধারণের অংশগ্রহণ, জলবায়ু ন্যায়বিচার ও টেকসই উন্নয়নে মানবাধিকারের কেন্দ্রীয় ভূমিকাটি পালন করুন। বিশ্ব মানবাধিকার দিবস এবং অন্যান্য দিনেও আমরা সবাই একসঙ্গে মানবাধিকারকে সামনে রেখে কাজ করি, যেন কোভিড-১৯ মহামারি থেকে ঘুরে দাঁড়ানো যায় এবং সবার জন্য আরও ভালো ভবিষ্যৎ গড়ে তোলা যায়।

১০ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে দেওয়া এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ মহাসচিব এসব কথা বলেন। ১৯৪৮ সাল থেকে জাতিসংঘ এই দিবসটি পালন করে আসছে। বিজ্ঞাপন

মানবাধিকার দিবসের বিবৃতিতে জাতিসংঘ মহাসচিব গুতেরেস বিবৃতিতে বলেন, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে মানবাধিকার সম্পর্কে দুইটি মৌলিক সত্য প্রকাশ পেয়েছে। প্রথমত, মানবাধিকার লঙ্ঘন আমাদের সবার ক্ষতি করে। কোভিড-১৯ মহামারি সম্মুখসারির কর্মী, প্রতিবন্ধী ব্যক্তি, প্রবীণ, নারী ও কিশোরী এবং সংখ্যালঘুসহ দুর্বল গোষ্ঠীগুলোতে অনানুপাতিক হারে প্রভাব ফেলেছে। এটি সম্ভব হয়েছে কারণ দারিদ্র্য, অসমতা, বৈষম্য, আমাদের প্রাকৃতিক পরিবেশের ধ্বংস এবং মানবাধিকারের অন্যান্য খাতের ব্যর্থতার ফলে আমাদের সমাজে ব্যাপক নাজুকতা তৈরি হয়েছে।

তিনি বলেন, একইসঙ্গে এই মহামারির বিরুদ্ধে ব্যাপক সুরক্ষা প্রতিক্রিয়া গ্রহণ করার ফলে নাগরিকতার ব্যাপ্তি এবং সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতাকে হ্রাস করতে দমনমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের অজুহাত দিয়ে মানবাধিকারকে ক্ষুণ্ন করা হচ্ছে। বিজ্ঞাপন

অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মতে, মহামারির কারণে প্রকাশিত দ্বিতীয় সত্য হলো— মানবাধিকার সর্বজনীন এবং আমাদের সবাইকে সুরক্ষা দেয়। মহামারি মোকাবিলা করার প্রক্রিয়া অবশ্যই সংহতি ও সহযোগিতার ভিত্তিতে হওয়া উচিত। একটি বৈশ্বিক হুমকির বিরুদ্ধে বিভাজনমূলক দৃষ্টিভঙ্গি, কর্তৃত্ববাদ ও জাতীয়তাবাদ কোনো ভূমিকা রাখে না।

সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, সাড়াদান ও ঘুরে দাঁড়াতে জনগণ ও তাদের অধিকার অবশ্যই কেন্দ্রবিন্দুতে থাকতে হবে। এই মহামারির বিরুদ্ধে জয়ী হতে এবং ভবিষ্যতে আমাদের সুরক্ষায় আমাদের সবার জন্য স্বাস্থ্যসেবার মতো সার্বজনীন ও অধিকারভিত্তিক কাঠামো দরকার।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি