1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : uddin : uddin uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
  5. sultansumon2050@gmail.com : Sultan Sumon : Sultan Sumon
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৮:৩০ পূর্বাহ্ন

১ হাজার ২৭০ জনকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের নির্দেশ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২১

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় পাস করা এক হাজার ২৭০ জনকে ধারাবাহিকভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) চেয়ারম্যানকে পাঠানো এক চিঠিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, ২০১৯ সালে দ্বিতীয় নিয়োগচক্রের ভুল চাহিদার সুপারিশের কারণে নিবন্ধন পরীক্ষায় পাস করেও নিয়োগ পাননি। এরপর গত বছরের ৯ জুন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে এক সভায় তাদের সমস্যা সমাধানের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু দেড় বছরেও সেই নির্দেশনা বাস্তবায়ন হয়নি।

ওই সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক এসব প্রার্থীদের স্থায়ী ঠিকানা নিকটবর্তী কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শূন্য পদে ও নিজ নিজ বিষয়ের বিপরীতে পূর্বের সুপারিশ ধারাবাহিকতায় প্রতিস্থাপন করতে হবে।

জানা গেছে, গত দুইবছর ধরে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের অপেক্ষায় দিন গুনছিল এই ১ হাজার ২৭০ জন। ২০১৮ সালে ২য় নিয়োগ পরীক্ষায় তারা উর্ত্তীণ হয়ে নিয়োগপ্রাপ্ত হন। কিন্তু প্রতিষ্ঠানের ভুল তথ্যের কারণে নিয়োগ ও এমপিও আটকে যায়।

এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পদ না থাকার পরও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শূন্য পদ দেখিয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিলে এর বিপরীতে এনটিআরসিএ তাদের সুপারিশ করে। কিন্তু সেসব প্রতিষ্ঠানে তখন কোনো শূন্য পদ ছিল না। ফলে তাদের নিয়োগ আটকে যায়।

এ জন্য গত দুই বছর ধরে তারা শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও এনটিআরসিএ’তে ঘুরছে। পরে ৫ জানুয়ারি তারা এনটিআরসিএ নতুন চেয়ারম্যান মো. আশরাফ উদ্দিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাদের দাবি তুলে ধরেন। তবে নিয়োগ ও এমপিও বঞ্চিতদের ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি এনটিআরসিএ।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি