1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : uddin : uddin uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
  5. sultansumon2050@gmail.com : Sultan Sumon : Sultan Sumon
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৭:৪৬ পূর্বাহ্ন

মানুষের সমস্যা হবে, তারপরও জীবনটা আগে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২১

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। একটু কষ্ট হবে। মানুষের সমস্যা হবে। তারপরও জীবনটা আগে। জীবন বাঁচানো সবার করণীয়।’ রোববার দুপুরে একাদশ সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত বছরের মার্চে করোনা শুরু হওয়ার পর স্বাস্থ্যবিধি মানাসহ নানা ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে আমরা এটিতে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হই। আজ আবার দেখা যাচ্ছে, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। এই দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।
তিনি বলেন, ২৯ মার্চ থেকে হঠাৎ করে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়ে গেল। এরপর থেকে বেড়েই চলছে। কখনো কখনো কমছে। সে কারণে আমরা এ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। কাজেই স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। মাস্ক পরতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। বিয়েসাদিসহ এ ধরনের অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে। পর্যটন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিদেশ থেকে এলে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। মূলত শপিংমল বন্ধ থাকবে। পণ্য অনলাইনে কেনাবেচা ও লোক মারফত পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা তারা করতে পারবে। 
সরকারপ্রধান বলেন, ১১ এপ্রিল নির্বাচন ছিল, তা স্থগিত করা হয়েছে। সব বিষয় গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। এক সপ্তাহের জন্য সব কিছু লকডাউন ঘোষণা দিয়েছি। সেটা মানলে অন্তত কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে আসবে।
শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ভ্যাকসিন দেয়া শুরু করার পর মানুষ যেন ডেসপারেট হয়ে গেছে। তারা মনে করছে, কিছুই হবে না। সবাই যেন অবাধে চলাফেরা করে দিয়েছে। এ অবাধে চলাফেরা বন্ধ করতে হবে। এর আগে দেখেছি, বয়স্করা সংক্রমিত হয়। কিন্তু এবার দেখছি, তরুণ এমনকি শিশুরাও সংক্রমিত হচ্ছে। তাদেরও সুরক্ষিত রাখতে হবে।
হেফাজতের তাণ্ডব প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, প্রথমেই আমরা দেখলাম, বিএনপি তাদের সমর্থন দিচ্ছে। বিএনপি-জামায়াত জোট কীভাবে সমর্থন দিচ্ছে সেটাই আমার প্রশ্ন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসবেন সেখানে তাদের আপত্তি। বিএনপির কর্মকাণ্ডে অবাক লাগে। হেফাজতের সঙ্গে যত রকম মদদ দেয়া। এখানে জ্বালাও-পোড়াও যতকিছু করতে হবে সেটার পরামর্শ তারা দিয়েছে। পরে তাদের কর্মকাণ্ডে সমর্থনও দেয়।
শনিবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে এক রিসোর্টের কক্ষে নারীসহ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে ঘেরাও করে জনতা। পুলিশ তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের সময় ‘হামলা চালিয়ে তাকে ছিনিয়ে নেয়’ তার অনুসারীরা।
সংসদে ওই হেফাজত নেতার সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, এরা একদিকে ইসলামের নাম, ধর্মের নাম, পবিত্রতার নাম ..এতোকিছু বলে যত অপবিত্র কাজ করে আজকে ধরা পড়ে সোনারগাঁওয়ে একটা রিসোর্টে। পার্লারে কাজ করা এক মহিলা। তাকে আবার এখন এদিকে তার বউ হিসেবে পরিচয় দেয়, আবার নিজের বউয়ের কাছে বলে যে অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে আমি এটা বলে ফেলেছি।
তিনি বলেন, যারা ইসলাম ধর্মে বিশ্বাস করেন এই রকম মিথ্য কথা, অসত্য কথা তারা বলতে পারেন কিনা। তারা তো বলতে পারে না। তাহলে এরা কি ধর্মপালন করে? মানুষকে কি ধর্ম শেখাবে? তাই হেফাজতের যারা সদস্য, তাদেরকেও আমি অনুরোধ করি, তারাও একটু বুঝুক কোন নেতৃত্বে তারা। আগুন জ্বালাও পোড়াও করে তিনি বিনোদন করতে গেলেন একটা রিসোর্টে একজন সুন্দরী মহিলা নিয়ে- এটাই তো বাস্তবতা।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এরা ইসলাম ধর্মের নামে কলংক। ইসলামকে তারা ছোট করে দিচ্ছে। কিছু লোকের জন্য আজকে এই ধর্মটা জঙ্গির নাম, সন্ত্রাসের নাম। এখন তো যেই চরিত্র দেখালো তাতে দুশ্চরিত্রের নামও জুড়ে দিচ্ছে।
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠান প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওই অনুষ্ঠানে অনেক বিদেশি অতিথি আসছেন। অনেকে বার্তা দিয়েছেন। বাংলাদেশ এত বড় সম্মান পাচ্ছে সেখানে কারা খুশি হতে পারলেন না। ২৬ মার্চ নরেন্দ্র মোদি আসবেন। তাকে আসতে দেয়া যাবে না। বাধা দেয়া- কেন? আমার এই প্রশ্ন।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি