1. hmgrobbani@yahoo.com : admin :
  2. noushaduddin16@gmail.com : uddin : uddin uddin
  3. news@soroborno.com : Md. Rabbani : Md. Rabbani
  4. nooruddinrasel@yahoo.com : nooruddin rasel : nooruddin rasel
  5. sultansumon2050@gmail.com : Sultan Sumon : Sultan Sumon
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:১১ পূর্বাহ্ন

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ডেনমার্ককে হারাল বেলজিয়াম

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১

স্পোর্টস ডেস্ক

গোটা ম্যাচজুড়েই ছিল টানটান উত্তেজনা। একবার বেলজিয়ামের দিক্কে পাল্লা ভারি তো পরের মুহূর্তেই এগিয়ে ডেনমার্ক। ঘরের মাঠে ম্যাচের শুরুতে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত রোমাঞ্চকর লড়াইটা জেতা হলো না ডেনিশদের। দ্বিতীয়ার্ধে থোরগান হ্যাজার্ড এবং কেভিন ডি ব্রুইনের গোলে ২-১ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বেলজিয়াম।

তবে মাঠের খেলায় হট ফেভারিট বেলজিয়ামদের কোণঠাসা করে ফেলেছিল ডেনিশরা। গোটা ম্যাচ জুড়ে বলের দখলে বেলজিয়াম এগিয়ে থাকলেও আক্রমণের দিক দিয়ে ডেনিশদের কাছে পাত্তায় পেলো না এডেন হ্যাজার্ডরা। ম্যাচে ৪৭ শতাংশ বল দখলে থাকলেও মোট ২০টি শট নেয় ডেনমার্ক। যার মধ্যে ৫টিই ছিল গোল বরাবর। বিপরীতে বেলজিয়ামের শট সংখ্যা মাত্র পাঁচটি যার মধ্যে চারটি ছিল গোল বরাবর।

গোটা প্রথমার্ধে ডেনমার্ক দুর্দান্ত খেললেও দ্বিতীয় মিনিটে ইউসুফ পোলসেনের করা একমাত্র গোলে এগিয়ে যায়। আর দ্বিতীয়ার্ধের ৫৫ মিনিটে কেভিন ডি ব্রুইনের অ্যাসিস্ট থেকে বেলজিয়ামকে সমতায় ফেরান থোরগান হ্যাজার্ড। আর ৭১ মিনিটে এডেন হ্যাজার্ডের অ্যাসিস্ট থেকে দুর্দান্ত এক গোল করে দলকে লিড এনে দেন কেভিন ডি ব্রুইন। শেষ পর্যন্ত আর কোনো গোল না হওয়ায় ওই ২-১ ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে বেলজিয়াম। আর এখানেই শেষ হয়ে যায় ডেনমার্কের এবারের ইউরো যাত্রা।

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ডেনমার্ককে হারাল বেলজিয়াম

ম্যাচ শুরু বাঁশি কেবলই বাজিয়েছেন রেফারি। এরপরেই বেলজিয়ামের ডিফেন্ডার ডেনায়েরের ভুলে বল পেয়ে যান পিয়েরে এমিল হইবার্গ। বল পেয়ে তা বাড়িয়ে দেন সতীর্থ ইউসুফ পোলসেনকে। ডি-বক্সের ভেতর বল পেয়ে নিচু শটে জালে জড়িয়ে উজ্জাপনে ভাসেন তিনি। ইউরোর হট ফেভারিট বেলজিয়ামের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ম্যাচের দুই মিনিটের মাথায় ১-০ ব্যবধানে লিড ডেনমার্কের।

লিড নিয়ে আরও তেঁতে ওঠে ডেনিশ খেলোয়াড়রা। বল দখলে রেখে আক্রমণ সাজাতে থাকে স্বাগতিকরা। বেলজিয়ামকে ম্যাচের শুরু থেকেই পাত্তাই দিচ্ছিল না তারা। ম্যাচের ৫ম মিনিটে আরও এক সুযোগ পায় ডেনিশরা কিন্তু মিডফিল্ডার মায়েহলা বল নিয়ে ঢুকে পড়েন বেলজিয়ামের ডি-বক্সে। তবে সেখানে একটু বেশি উচ্চাভিলাষী হয়ে পড়েছিলেন তিনি, জোরালো শট করলেও তা সোজা বেলজিয়ান গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়ার বরাবরই চলে যায়। যেখানে ডি-বক্সের ভেতর ফাঁকাতে আরও ভালো অবস্থানে ছিলেন ফরোয়ার্ড মার্টিন ব্র্যাথওয়েট। তাকে বল পাস দিলেই কেবল পায়ের টোকাতে ব্যবধান হতে পারত দ্বিগুণ।

ম্যাচের ঘড়ির কাঁটা ১০ মিনিট ছোঁয়ার পর ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের সম্মান ও সমর্থনে গ্যালারিতে উপস্থিত সব দর্শক একসঙ্গে দাঁড়িয়ে হাততালি দিতে থাকে। রেফারি তখন খেলা থামিয়ে দেন, দু’দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগ দেন তারাও।

৩৫তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর আরও এক সুযোগ আসে ডেনিশদের সামনে। তবে এবারে ডামসগার্ডের শট কোর্তোয়াকে পরাস্ত করলেও গোলপোস্টের সামান্য বাইরে দিয়ে বেরিয়ে গেলে এ যাত্রায় রক্ষা পায় রেড ডেভিলসরা। এমন সব আক্রমণের মধ্য দিয়েই প্রথমার্ধ ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে শেষ করে ডেনমার্ক।

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ডেনমার্ককে হারাল বেলজিয়াম

বিরতির পর ড্রায়েস মার্টেন্সকে তুলে নিয়ে কেভিন ডি ব্রুইনকে মাঠে নামান বেলজিয়ান কোচ রবার্তো মার্টিনেজ। আর তাতেই বাজিমাৎ! মাঠে নেমেই দ্বিতীয়ার্ধের ১০ম মিনিটে দলকে সমতায় ফেরাতে বড় অবদান রাখেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারজয়ী ম্যানচেস্টার সিটির তারকা কেভিন ডি ব্রুইন। ৫৫তম মিনিটে প্রতি-আক্রমণে বল নিয়ে ডেনমার্কের ডি-বক্সের দিকে ছুটে যান রোমেলো লুকাকু। ডি-বক্সের ঠিক সামনে থেকে কেভিন ডি ব্রুইনকে পাস দিয়ে ঢুকে পড়েন ভেতরে। এরপর ডি ব্রুইন বল নিয়ে এক ডিফেন্ডারের চ্যালেঞ্জ কাটিয়ে অসাধারণ এক পাস দেন থোরগান হ্যাজার্ডের উদ্দেশে। আর একদম কাছ থেকে বল পেয়ে পায়ের আলতো টোকায় বল জালে পাঠিয়ে দেন থোরগান হ্যাজার্ড। তাতেই ম্যাচে ১-১ গোলে সমতায় ফেরে বেলজিয়াম।

এরপর ম্যাচের ৫৯তম মিনিটে বদলি হিসেবে মাঠে নামেন এডেন হ্যাজার্ড। এরপর ম্যাচের নিয়ন্ত্রণে যায় বেলজিয়াম। একের পর এক দুর্দান্ত সব আক্রমণ করতে শুরু করে রেড ডেভিলসরা। এডেন হ্যাজার্ড মাঠে নামার পরেই ম্যাচের চিত্র পাল্টে যায় বেলজিয়ামের। মাঠে নামার ১১তম মিনিটের মাথায় তেলেসমানের সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় ডেনমার্কের ডি-বক্সের ঠিক বাইরে বল পান হ্যাজার্ড। এরপর বাঁ দিকে ফাঁকায় থাকা কেভিন ডি ব্রুইনকে খুঁজে নিয়ে বল পাস দেন হ্যাজার্ড। আর বল পেয়ে ডি-বক্সের ভেতর থেকে নিচু শটে স্মাইখেলকে পরাস্ত করে বেলজিয়ামকে লিড এনে দেন কেভিন ডি ব্রুইন।

দলকে লিড এনে দেওয়া গোল করার পরেও ডেনিশদের বিপক্ষে উজ্জাপন করেননি ডি ব্রুইন। তখনই মনে করিয়ে দিচ্ছিলেন ডেনিশদের প্রথম ম্যাচে ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনাটি। আর একারণেই উজ্জাপন করেননি ডি ব্রুইন।

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ডেনমার্ককে হারাল বেলজিয়াম

এরপর ম্যাচের বাকি সময়টা দুই দলই অসংখ্য সুযোগ তৈরি করলেও আর কেউই গোলের দেখা পায়নি। শেষ পর্যন্ত ওই ২-১ ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় বেলজিয়ামকে। আর প্রথম দুই ম্যাচের দুটিতেই হেরে এখানেই শেষ হয়ে যায় ডেনমার্কের এবারের ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের যাত্রা।

গ্রুপ ‘বি’র প্রথম দুই ম্যাচের দুটিতে জিতে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে বেলজিয়াম। রাশিয়া ও ফিনল্যান্ড একটি করে ম্যাচ জিতে যথাক্রমে আছে দুই ও তিনে। গ্রুপের শেষ দুই ম্যাচে সোমবার (২১ জুন) রাশিয়া লড়বে ডেনমার্কের বিপক্ষে (পার্কেন স্টেডিয়াম, কোপেনহেগেন, ডেনমার্ক; বাংলাদেশ সময় রাত ১টা)। আর ফিনল্যান্ড ও বেলজিয়াম লড়বে সেন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়াম, সেন্ট পিটার্সবার্গ, রাশিয়া; বাংলাদেশ সময় রাত ১টায়।

More News Of This Category
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি